Copyright 2017 - Custom text here

কিশোর বয়সে মুখে ব্রণ

User Rating: 0 / 5

Star InactiveStar InactiveStar InactiveStar InactiveStar Inactive
 

কিশোর বয়সে মুখে ব্রণ

মুখে ব্রণ কিশোর বয়সের একটি অতি পরিচিত রোগ । কারো কারো ক্ষেত্রে

এ রোগ জীবনের তৃতীয় বা চতুর্থ দশক পর্যন্ত হতে পারে । এ বয়সের পর সাধারণত

আর কারো ব্রণ হয় না । সাধারণত এ রোগ ছেলেদের চেয়ে মেয়েদের হওয়ার ঝুঁকি

বেশি । মুখ ছাড়াও কখনো কখনো বুকে ও পিঠে ব্রণ হতে পারে।

 প্রপিয়নিব্যাকটেরিয়াম একনি নামক এক বিশেষ ধরনের ব্যাকটেরিয়ার

সংক্রমণে এ রোগ হয় । চামড়ায় বিদ্যমান পাইলোসেবাসিয়াস ইউনিটে এ

ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমনে এ ইউনিটের নালীপথ বন্ধ হয়ে যায় । ফলে এখানে

উৎপাদিত সেবাম চামড়ার উপরিভাগে বের হয়ে আসতে পারে না বলে

আক্রান্ত স্থানে বড় বড় বিচি বা গোটা তৈরি হয় ।

সতর্কতা :

. কখনো নখ দিয়ে খোঁচাখোঁচি করবেন না । এমন করলে দাগ পড়ে যাওয়ার আশঙ্কা

বেশি ।

.সবসময় মুখ পরিস্কার রাখুন । বাইরে থেকে বাসায় ফিরেই ফেসওয়াশ বা সাবান

দিয়ে মুখ পরিস্কার রাখবেন ।

এছাড়া বাজারে এক বিশেষ ধরনের ঔষধ সাবান পাওয়া যায়, যা অধিকতর

কার্যকরি।

.মেয়েদের জন্য ব্রণযুক্ত মুখে কোন ধরনের কসমেটিক লাগানো নিষেধ।

.ব্রণের পরিমাণ কম হলে কোন চিকিৎসা লাগে না । ব্রণের তীব্রতা অধিক হলে ও দাগ

পড়ার আশঙ্কা থাকলে চিকিৎসা নিতে হবে ।

Reference:

.  acne vulgaris  wikipaedia/en

f t g m

প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী : ডা: মো: হেলাল উদ্দিন

ব্যবহারের শর্তাবলী                                               গোপনীয়তার নীতি