Copyright 2017 - Custom text here

গলগন্ড

User Rating: 0 / 5

Star InactiveStar InactiveStar InactiveStar InactiveStar Inactive
 

গলগন্ড  হল থাইরয়েড গ্রন্থির অস্বাভাবিক বৃদ্ধি । 

কারণসমূহ:

*এসব রোগীদের বেশির ভাগ ক্ষেত্রে কিছু অটোইম্যুন রোগ থাকে যার মধ্যে

 গ্রেভ’স রোগ প্রধান। এ সব রোগে টিএসএইচ-এর বিরুদ্ধে অ্যান্টিবডি তৈরি হয়। 

 *খাদ্যে আয়োডিনের অভাব থাকলে থাইরয়েড গ্রন্থিটি ক্রমশ আকারে বড় হতে থাকে।

*এছাড়া থাইরয়েড গ্রন্থির কিছু কিছু অবস্থানিক সমস্যার কারণে গ্রন্থিটি ক্রমশ বড় হতে থাকে।

এর মধ্যে আছে নডিউল, ক্যান্সার, হাইপার থাইরয়ডিজম ও হাইপোথাইরয়ডিজম।

বিস্তৃতি :

বাংলাদশের বিভিন্ন অঞ্চলে বহু সংখ্যক গলগন্ডের রোগী আছে।

এর মধ্যে উত্তরাঞ্চলীয় জেলাগুলোতে এর প্রকোপ বেশি।

আবার মহিলাদের মাঝে গলগন্ডের হার পুরুষের চেয়ে বেশি।

বাংলাদেশ বাদে অস্ট্রেলিয়ার কিছু এলাকা, আলপম পর্বতের পাদদেশ যুক্তরাষ্ট্রের

গ্রেট লেক এলাকা ও পার্শ্ববর্তী ভারতের হিমালয় পর্বতের আশপাশের বিস্তীর্ণ

এলাকায় প্রচুর গলগন্ডের রোগী দেখা যায়।

সমুদ্র থেকে দূরবর্তী অঞ্চলে গলগন্ডের প্রকোপ বেশি দেখা দেবার কারণ হল,

সমুদ্র থেকে যত দূরত্ব বাড়ে মাটিতে তত কম পরিমাণ আয়োডিন পাওয়া যায়।

আয়োডিনের  দীর্ঘদিনের অভাবে থায়রয়েড গ্রন্থি ক্রমশ বড় হতে থাকে।

মাটিতে আয়োডিনের অভাব বাদেও কিছু কিছু খাবার বেশি পরিমাণে এবং অনেক দিন

ধরে খেতে থাকলেও আয়োডিনের কার্যকারিতা হ্রাস পায় এবং গলগন্ড হতে পারে। এ সব

খাবারের মধ্যে আছে পাতা কপি, ব্রকলি, ফুলকপি, সয়া জাতীয় খাদ্য ইত্যাদি। কিছু কিছু

ওষুধও থায়রয়েড গ্রন্থির বৃদ্ধির কারণ হতে পারে।

লক্ষণসমূহ :

 এর প্রধানতম লক্ষণ হল গলার সামনের দিকের মাঝখানের নিচের অংশ

বা দু’পাশ ফুলে উঠা। রোগী সাধারণত নিজে নিজে  প্রথমে এ সমস্যাটি সনাক্ত

করতে পারে না।  প্রথমে তার ঘনিষ্ঠ জন গলার এ বৃদ্ধিকে সনাক্ত করে।

থাইরয়েড গ্রন্থিটির বৃদ্ধির সাথে সাথে খেতে বা ঢোক গিলতে অসুবিধা দেখা দিতে পারে।

গলগন্ড খুব বড় হলে শ্বাস-প্রশ্বাসেও সমস্যা হতে পারে।

মেয়েদের ঋতুস্রাবের সময় ও গর্ভাবস্থায় গলগন্ড সাময়িকভাবে আরো বেড়ে যায়। 

পরীক্ষাসমূহ:

 গলগন্ডের সম্ভাব্য রোগীকে বিভিন্ন পরীক্ষা করানো হয় যেমন,

.শারীরিক পরীক্ষা

.রক্ত পরীক্ষায়

. থাইরয়েড আলটাসোনোগ্রাম  

. থাইরয়েড বায়োপসি

.রেডিও অ্যাকটিভ আয়োডিন আপটেক পরীক্ষা  ইত্যাদি

চিকিৎসা:

গলগন্ডের কারণ নির্ণয় কর  পর এর চিকিৎসা পদ্ধতি ঠিক করা হয়।

গলগন্ডের রোগীর থায়রয়েড গ্রন্থি যদি সামান্য একটু বৃদ্ধি প্রাপ্ত হয়ে থাকে এবং

এর শুধুমাত্র পর্যাপ্ত আয়োডিন সরবরাহ করেই এ সমস্যা থেকে মুক্তি পাবার প্রচেষ্টা

করা যেতে পারে।

*কিছু কিছু ক্ষেত্রে যদি আয়োডিনের ঘাটতিজনিত হাইপোথাইরডের গলগন্ড বৃহদাকার হয়,

এক্ষেত্রে শুধুমাত্র আয়োডিন যোগ করে তেমন  উন্নতি আশা করা যায় না।

এক্ষেত্রে বৃদ্ধিপ্রাপ্ত থাইরয়েড গ্রন্থিকে অপারেশন করে কেটে ফেলা ছাড়া উপায় থাকে না।

সেই সঙ্গে আজীবন হরমোন খাওয়াতে হয়।  

*আর হাইপারথাইরয়ডিজমের কারণে গলগন্ড হলে থাইরয়েড গ্রন্থির কার্যকারিতা

কমাতে পারে এমন ঔষধ দিয় সংশোধনের চেষ্টা করা হয়। এদের ক্ষেত্রেও অপারেশন

করে স্ফীত গ্রন্থিটি বাদ দেয়া জরুরি হয়ে পড়তে পারে।  অনেক অসময় নিরীহ

থায়রয়েড নডিউল হলে ওষুধ দ্বারা সংশোধনের চেষ্টা করাই উত্তম।

থায়রয়েড গ্রন্থির ক্যান্সার হলে দ্রুত অপারেশন করে পুরোটা গ্রন্থি কেটে ফেলে দেয়া

হয়। এর পর রেডিও অ্যাকটিতে আয়োডিন দিয়ে চিকিৎসা করা হয়

সতর্কতা:

*বাংলাদেশের ভৌগোলিক ও ভূতাত্ত্বিক পরিস্থিতিতে আয়োডিনের অভাবজনিত

হাইপোথাইরয়ডিজম এবং এর ফল স্বরূপ গলগন্ড খুব বেশি দেখা যায়।

বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলীয় জেলাসমূহ, যেমন বৃহত্তর রংপুর জেলা, বৃহত্তর দিনাজপুর জেলা,

বৃহত্তর ময়মনসিংহ ( বিশেষ করে শেরপুর ও জামালপুর জেলা) জেলার বিপুল সংখ্যক

নারী ও পুরুষ আয়োডিনের অভাবজনিত গলগন্ড রোগে ভুগছেন।  

এদের জন্য পর্যাপ্ত আয়োডিনের ব্যবস্থা করতে পারলেই ব্যাপক জনগোষ্ঠি গলগন্ডের হাত

থেকে রেহাই পাবে। সরকারিভাবে খাবার লবণে নির্দিষ্ট মাত্রার আয়োডিন মিশানোর

নির্দেশ দেয়া থাকলেও আমাদের অভিজ্ঞতা ভাল নয়। বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই নির্দেশিত

মাত্রার আয়োডিন নেই কিন্তু এর দাম নেয়া হচ্ছে আয়োডিনযুক্ত লবণ হিসেবে।

আর এ ব্যাপারে ব্যাপক জনসচেতনতা অপরিহার্য।


*থায়রয়েড ক্যান্সার প্রাথমিক পর্যায়ে ধরা পড়লে সম্পূর্ণ রূপে  সুস্হ করানো যায়।

যে কোন বয়সে থায়রয়েড ক্যান্সার হতে পারে যদিও জীবনের চতুর্থ দশকের

কাছাকাছি বয়সে বেশি সংখ্যক রোগীদের সনাক্ত করা হচ্ছে। গলগন্ড হয়েছে বা

হচ্ছে বলে সন্দেহ  হলেও চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত।

 

f t g m

প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী : ডা: মো: হেলাল উদ্দিন

ব্যবহারের শর্তাবলী                                               গোপনীয়তার নীতি