Copyright 2017 - Custom text here

আপনার শিশুর পেট ব্যথা

User Rating: 0 / 5

Star InactiveStar InactiveStar InactiveStar InactiveStar Inactive
 

 

 

 

চিত্র : শিশুর পেটে ব্যথা

 

             শিশুদের পেটব্যথা একটি অতি পরিচিত  ও সচরাচর ঘটনা।

  এই ব্যথা হলেই কৃমির সংক্রমণ  বা  পেটে গ্যাস জমেছে বলে ধরে নেওয়া

 সঠিক নয়। শিশুর পেটব্যথার বিভিন্ন  কারণ রয়েছে ।  ব্যথার প্রকৃতি যাচাই

 করেই কারণ নির্ণয় করতে হয়। এ বিষয়ে কয়েকটি গুরূত্বপূর্ন পরামর্শ হচ্ছে :

* গরমের দিনে দোকান থেকে ক্রয় করা বিভিন্ন রকমের জুস,চকলেট,

আইসক্রিম ও কাঁচা ফলমূল থেকে জীবাণুর সংক্রমণের ফলে শিশুর

পেটব্যথা হতে পারে। এ প্রকারের খাবার খাওয়ার পর পেটব্যথা শুরু হলে

এবং সাথে বমি বা ডায়রিয়া থাকলে প্রায় নিশ্চিত হওয়া যায় যে, খাবার

থেকেই সংক্রমণ হয়েছে। এ  ঘটনা ঘটলে ডায়রিয়া ও বমির জন্য স্যালাইন

খাওয়াতে হবে। শিশুকে দিতে হবে  তরল খাবার। প্রয়োজনে চিকিৎসকের

পরামর্শ অনুসারে অ্যান্টিবায়োটিক  ও সেবন করাতে হয় ।

* কিছু কিছু খাবারে অ্যালার্জির জন্যও শিশুর পেটব্যথা হতে পারে।

এক্ষেত্রে মায়েদের ভালোভাবে খেয়াল রাখতে হয়, কী কী খাবারে তাঁর

 সন্তানের অ্যালার্জি হয়,পরবর্তীতে এ খাবারগুলোর ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হয়।

.শিশুকে ভালোভাবে শিখিয়ে দিন—খাওয়ার আগে সাবান দিয়ে হাত

 ধৌত করা জরূরী। যেকোনো ফল বা কাঁচা জিনিস ভালোভাবে ধৌত

 করে খেতে হয় এবং  হাত বা আঙুল যখন - তখন মুখে দিতে নেই।
* পেটব্যথা চলা কালীন কৃমির ওষুধ খাওয়া নিষেধ। আবার খেয়াল

খুশি মত গ্যাসের ওষুধ বা সিরাপ দেওয়াও উচিত নয়। ব্যথা কেন এবং

 কী রকম, তা   পর্যবেক্ষণ করূন ।
* ব্যথা তীব্র হলে ব্যাপারটাকে গুরূত্ব দিন। শিশুকে আঙুল দিয়ে স্পষ্ট করে

 দেখাতে বলুন, সবচেয়ে বেশি ব্যথা কোথায় হচ্ছে।
* মানসিক সমস্যার কারণেও মাঝে মাঝে ব্যথা  হয়। পরিবারে অশান্তি,

 হঠাৎ স্কুল পরিবর্তন বা এলাকা পরিবর্তন, স্কুলে যেতে অনীহা, স্কুলের

 বন্ধু বা বান্ধবীদের থেকে সহযোগীতা না পাওয়া,  মানসিক নির্যাতন বা

 উত্ত্যক্ত হওয়ার কারণে পেটব্যথার মতো উপসর্গ হতে পারে।
* বয়ঃসন্ধিকালে মেয়েদের  তলপেটে মাসিকের ব্যথা শুরু হতে পারে।

এতে অনেক মেয়েশিশু ভয় পেয়ে যায় ও অস্থিরতা বোধ করে।

 বিষয়টা আদরের সাথে তাকে বুঝিয়ে বলুন।
* যেকোনো পেটব্যথার সঙ্গে পেট ফুলে যাওয়া, পায়খানা বন্ধ হয়ে যাওয়া

  বা পায়খানার সঙ্গে রক্ত যাওয়া, অনবরত বমি, জ্বর,  গিরা ব্যথা, ওজন হ্রাস,

  ব্যথার চোটে ঘুম ভেঙে যাওয়া ইত্যাদি লক্ষণ থাকলে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

f t g m

প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী : ডা: মো: হেলাল উদ্দিন

ব্যবহারের শর্তাবলী                                               গোপনীয়তার নীতি